বিনোদন

রূপচর্চা

জেনে নিন চুল গজানোর ৫ ধরনের উপায়

চুল যেহেতু রূপচর্চার অন্যতম অনুষঙ্গ তাই প্রত্যেকেই চুল পড়ার মতো হতাশাজনক বিষয়টিকে পরাস্ত করে দ্রুত নতুন চুল গজানোর উপায় জানতে চায়। ডাক্তার এবং বিজ্ঞানী কেউই এখন পর্যন্ত চুল দ্রুত গজানোর সহজ কোনো উপায় বের করতে পারেননি। কিন্তু সৌভাগ্যের ব্যাপার যে বেশ কিছু উপায় আছে যা দ্বারা আপনার চুল দ্রুত গজাতে সাহায্য করবে। স্বদেশ খবর পাঠকদের জন্য এ ধরনের কিছু উপায় দেয়া হয়েছে, যা স্বাভাবিক চুল গজাতে সাহায্য করবে।

গরম তেল মালিশ
চুলে তেল ব্যবহারে একটি উজ্জ্বল ভাব এনে দেয়। ত্বকের কারণে অনেকে নিয়মিত চুলে তেল দেন না। দৈনিক কয়েকবার চুলে তেল না দিয়ে, সহজেই আপনি মাথায় একবার গরম তেল মালিশ করতে পারেন। নারিকেল তেল, ক্যাস্টর অয়েল এবং জলপাই তেলও চুলে ব্যবহার করতে পারেন। এটি আপনার চুলকে পুষ্টি জুগিয়ে শক্তিশালী করতে সাহায্য করবে। ফলাফল স্বরূপ, আপনার চুল দ্রুত বৃদ্ধি পেতে থাকবে।
আলু
আপনি হয়ত বিস্মিত হবেন আলু আবার কিভাবে চুলের বৃদ্ধি দ্রুত করতে সাহায্য করবে? অথচ অনেকেই জানেন না যে চুলের বৃদ্ধি ত্বরান্বিত করতে আলু একটি উপযুক্ত উপাদান। এর জন্য ৩টি আলু নিয়ে ব্লেন্ডারে দিয়ে রস বের করে তা ছেঁকে নিতে হবে। এরপর অবশ্যই এতে একটি ডিমের কুসুম, অল্প একটু পানি এবং এক চা-চামচ মধু যোগ করতে হবে। এই মিশ্রণটি নিয়ে ভেজা চুলে প্রয়োগ করতে হবে। ৩০ মিনিট অপো করে আলতোভাবে উষ্ণ পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। কয়েক মাস ধরে প্রতি সপ্তাহে এটি চালিয়ে যেতে হবে। এ পদ্ধতি ব্যবহার করে কয়েক সপ্তাহের মধ্যেই ফলাফল দেখতে পাবেন।
পিঁয়াজ
পিঁয়াজ আপনার চুলকে যতটা সম্ভব স্বাস্থ্যবান হতে সাহায্য করবে। প্রথমে ৪ কোষ রসুন, ২ টুকরা দারুচিনি এবং একটি পিঁয়াজ নিন। এগুলো নিয়ে সেদ্ধ করে ঠা-া হতে দিন। এটি ঠা-া হলে মিশ্রণটি সমস্ত চুলে মালিশ করুন। এটি চুলে ১৫ মিনিট বসে থাকতে দিন, তারপর হালকা গরম পানি দিয়ে আলতো করে ধুয়ে ফেলুন। এটা করার কারণে আপনার চুল আরও ঘন হবে এবং চুলের ডগা ফেটে যাবে না। এটি আপনার চুলকে দীর্ঘায়িত করবে এবং আপনার চুলকে আরও দ্রুত হারে ঘন করে তুলবে।
একটি ভালো খাদ্য তালিকা
একটি ভালো খাদ্য তালিকা অনেক কারণে গুরুত্বপূর্ণ। এটি আপনার চুলকে স্বাস্থ্যবান রাখে এবং স্বাস্থ্যবান চুল সব সময়েই বৃদ্ধি পায়। এটি আরও ঘন ও পরিপূর্ণ হয় এবং একে আরও দীর্ঘায়িত দেখায়। একটি ভালো খাদ্য তালিকা, যা আপনার মাথার চামড়া এবং চুলকে সাহায্য করবে তার মধ্যে বাদাম, দই, গাজর এবং আরও অনেক রকমের ফল থাকতে পারে। অস্বাস্থ্যকর খাবার আপনার চামড়া এবং চুল উভয়কেই অস্বাস্থ্যকর তেল সরবরাহ করতে পারে, যা চুলের তি করে। যখন আপনার চুল তিগ্রস্ত এবং অস্বাস্থ্যকর হবে, তখন এর বৃদ্ধি পাওয়া কঠিন হবে এবং দেখতে অনাকর্ষণীয় মনে হবে। যদি আপনি আপনার খাদ্য তালিকা পরিবর্তন করে এতে চুলের বৃদ্ধির জন্য প্রয়োজনীয় উপাদান সমৃদ্ধ খাবার যোগ করেন তবে অবশ্যই আপনি বেশ ভালো ফলাফল দেখতে পাবেন।
ভিটামিন
আপনার চুল দ্রুত স্বাস্থ্যবান হয়ে ওঠার একটি চমৎকার উপায় হলো চুলের বৃদ্ধির জন্য ভিটামিন ব্যবহার করা। সব সময়েই চুলের যতœ নেয়া প্রয়োজন তবে ভিটামিন গ্রহণ করে চুলের বৃদ্ধির প্রক্রিয়া ত্বরান্বিত করা যেতে পারে। চুলের সম্পূরক উপাদানসমূহ দ্রুত এতে প্রবেশ করে এবং বিস্ময়করভাবে কাজ করে। এ জন্য নিয়মিতভাবে ফলিক এসিড পিল এবং চুল গজানোর ইরড়ঃবরহ গ্রহণ করা উচিত। এটি আপনার চুলকে শক্তি যোগায় এবং পরিমাণে বাড়িয়ে দেয়। ভিটামিন অ, ঊ এবং ঈ মসৃণ ও রেশমি চুলের জন্য চমৎকার। আপনার খাদ্য তালিকার পরিবর্তন বা যেকোনো প্রকারের সম্পূরক উপাদান গ্রহণের পূর্বে চিকিৎসকের সাথে পরামর্শ করে নিন। এ ধরনের সকল পণ্য খুঁজে পাওয়া বেশ সহজ এবং আপনার চুলের উৎসাহজনক স্বাস্থ্য এবং বৃদ্ধির জন্য বেশ উপযোগী।
যদি আপনার লম্বা চুলের আকাক্সক্ষা থাকে তাহলে চুল বৃদ্ধির টিপসসমূহ অনুসরণ করার এখনই সময়। এগুলো অনুসরণ করার মাধ্যমে আপনি মাত্র কয়েক সপ্তাহের মধ্যে নিশ্চিত ফল পেতে পারেন। আপনার চুল বৃদ্ধির জন্য সবচেয়ে ভালো উপায় হলো তা যতটা সম্ভব স্বাস্থ্যবান রাখা এবং এরকম কিছু পদ্ধতি ব্যবহার করে আপনার চুলের বৃদ্ধির হার বজায় রাখা। আমরা চাই বা না চাই, আমাদের চেহারায় চুলের একটি বিরাট ভূমিকা আছে। দেখতে ভালো দেখানোর জন্য আমাদের অবশ্যই স্বাস্থ্যবান দীর্ঘ চুল থাকতে হবে।