বিনোদন

১০ বছরের লুকোচুরির অবসান

বিনোদন প্রতিবেদক : দীর্ঘ ১০ মাস লোকচক্ষুর আড়ালে ছিলেন অপু বিশ্বাস। তখন কারণ জানা না গেলেও এখন গেছে। ওই সময়ে অপু ছিলেন প্রেগন্যান্ট। অবশেষে সন্তান কোলে নিয়ে অপু বললেন, সন্তানের বাবা শাকিব খান। প্রায় ১০ বছর আগে শাকিবের গুলশানের বাসায় এপ্রিল মাসের ১৮ তারিখ দুই পরিবারের লোকজনের উপস্থিতিতে ছোট পরিসরে বিয়ের আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন হয়েছিল। সে দিনই অপুর নাম পরিবর্তন করে রাখা হয় অপু ইসলাম খান। অপু জানান, এই দীর্ঘ সময় তিনি সামাজিকভাবে স্ত্রীর মর্যাদা ও স্বীকৃতি পাননি। তবে এই নায়ক-নায়িকার ভক্তরা বলছেন, ১০ বছর পরে হলেও লুকোচুরির অবসান ঘটালেন অপু বিশ্বাস।
গত বছর শামীম আহমেদ রনি পরিচালিত ‘বসগিরি’ চলচ্চিত্রের শুটিংয়ের সময় অপু বিশ্বাস গর্ভে সন্তানের উপস্থিতি টের পান। ফলে তিনি শুটিং ছাড়তে বাধ্য হন। শাকিব খানের অনুরোধে বিষয়টি গোপন রাখেন তিনি। এরপর অপু কলকাতায় আত্মীয়ের বাসায় চলে যান। ২০১৬ সালের ২৭ সেপ্টেম্বর কলকাতার এক কিনিকে তাদের সন্তানের জন্ম হয়। পরে তারা ছেলের নাম রাখেন আব্রাহাম খান জয়। বাংলাদেশের চলচ্চিত্র তারকা শাকিব খান ও অপু বিশ্বাসের দীর্ঘদিন ধরে গোপন রাখা বিয়ে ও সন্তানের খবর নাটকীয়ভাবে প্রকাশ পায় ১০ এপ্রিল। ওই দিন অপু বিশ্বাস জানান, ২০০৮ সালে তাদের বিয়ে হয়। কিন্তু শাকিবের ক্যারিয়ারের কথা বিবেচনা করে বিয়ের খবরটি সেই সময় গোপন রাখা হয়। প্রায় ১০ বছর পর এই সম্পর্কের কথা প্রকাশ করার সময় অপু বিশ্বাস বলেন, তিনি শাকিবের ভালো চিন্তা করে অনেক ত্যাগ স্বীকার করেছেন; তবে এখন ছেলের কথা ভেবে সামাজিক স্বীকৃতির প্রসঙ্গটি সামনে নিয়ে আসেন।
সংশ্লিষ্টরা বলছেন, বাংলাদেশের সিনেমা জগতে চালু রীতি হচ্ছে জনপ্রিয় জুটি বিয়ে করে ফেললে, সাধারণত বিয়ের পর তারা জুটি বদল করেন; অর্থাৎ দুইজনই ভিন্ন নায়ক-নায়িকার সঙ্গে কাজ করেন। কিন্তু এেেত্র তা হয়নি। কারণ শাকিব খান অপু বিশ্বাস ছাড়াও অন্য নায়িকার সাথে অভিনয় করেছেন। কিন্তু অপু বিশ্বাস শাকিব খান ছাড়া কারো সঙ্গে অভিনয় করেননি। সন্তান নিয়ে টেলিভিশনে লাইভ অনুষ্ঠানে হাজির হবার ঘটনা অপু বিশ্বাসই প্রথম ঘটালেন। তবে বিয়ে লুকিয়ে রাখার ঘটনা প্রথম নয়। এর আগে অনন্ত জলিল ও বর্ষার বিয়ের ঘটনা কিছুটা এরকমই ছিল। শাকিল খান ও পপির বিয়ের ঘটনাও প্রকাশ হয়েছিল অনেক লুকোচুরির পরে। এ নিয়ে প্রথমে শাকিব খান ছেলের দায়িত্ব নেয়ার কথা স্বীকার করলেও অপুর দায়িত্ব নিতে অস্বীকৃতি জানালেও পরে স্ত্রী-পুত্র উভয়কেই স্বীকার করে নেন।