প্রচ্ছদ প্রতিবেদন

সুবিধাজনক সময়ে বাংলাদেশ সফরে আসার সিদ্ধান্ত জানালেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প

স্বদেশ খবর ডেস্ক : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ২১ মে রিয়াদের কিং আবদুল আজিজ কনভেনশন সেন্টারে ‘গ্লোবাল সেন্টার ফর কমবাইটিং এক্সট্রিমিস্ট থট’ শীর্ষক উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করেন। সেখানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে শুভেচ্ছা বিনিময়কালে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প বাংলাদেশ সফরে আসার আগ্রহ ব্যক্ত করেন। ট্রাম্প তখন বলেন, ‘হ্যাঁ আমি বাংলাদেশে আসব।’ বাদশাহ আবদুল আজিজ আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রের কে আরব ইসলামিক-আমেরিকান সামিট (এআইএ) শুরুর আগে দুই নেতা কুশলাদি বিনিময় করেন। সে সময়ই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ডোনাল্ড ট্রাম্পকে বাংলাদেশ সফরের আমন্ত্রণ জানান। আমন্ত্রণ গ্রহণ করে ট্রাম্প তাঁর বাংলাদেশ সফরে আসার আশাবাদ ব্যক্ত করেন। এদিকে বাদশাহ আবদুল আজিজ আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে আরব ইসলামিক-আমেরিকান সম্মেলনের সাইড লাইনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তাজিকিস্তানের প্রেসিডেন্ট ইমোমালি রাহমানের সঙ্গে একটি দ্বিপীয় বৈঠক করেন। তাজিকিস্তানের প্রেসিডেন্ট প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে তাঁর সুবিধাজনক সময়ে তাজিকিস্তান সফরের আমন্ত্রণ জানান। এছাড়া সম্মেলনের সাইড লাইনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রী নাজিব রাজাকের সঙ্গেও বৈঠক করেন। বহুদিন ধরেই বাংলাদেশ-মালয়েশিয়ার সম্পর্ক অত্যন্ত বন্ধুভাবাপন্ন এবং দুই নেতা বৈঠকে দ্বিপীয় স্বার্থসংশ্লিষ্ট বিভিন্ন বিষয়ে আলোচনা করেন।
আরব ইসলামিক-আমেরিকান সম্মেলনে যোগদান শেষে প্রধানমন্ত্রী প্রথমে মহানবী হজরত মুহাম্মদ (সা.)-এর রওজা মোবারক জিয়ারত এবং পরে মক্কায় পবিত্র ওমরাহ পালন করেন। প্রধানমন্ত্রী ও তাঁর সফরসঙ্গীরা রাজকীয় সৌদি এয়ারলাইনসের একটি ভিভিআইপি ফাইটে মদিনার প্রিন্স মোহাম্মদ বিন আবদুল আজিজ বিমানবন্দরে পৌঁছেন। বিমানবন্দরে তাঁকে স্বাগত জানান সৌদি আরবের ডেপুটি প্রিন্স সৌদ বিন খালেদ আল ফয়সাল। প্রধানমন্ত্রী মসজিদে নববীতে জোহরের নামাজ আদায় করেন এবং পরে মহানবী (সা.)-এর রওজা শরিফ জিয়ারত করেন। পরবর্তীতে তিনি একই ফাইটে জেদ্দা যান এবং সেখান থেকে সড়ক পথে মক্কায় পৌঁছে পবিত্র ওমরাহ পালন করেন।
প্রসঙ্গত, সৌদি বাদশাহর আমন্ত্রণে আরব ইসলামিক-আমেরিকান সম্মেলনে যোগ দিতে ২০ মে রিয়াদে যান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ও মুসলিম প্রধান অর্ধশতাধিক দেশের সরকার ও রাষ্ট্রপ্রধান ২১ মে কিং আবদুল আজিজ আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে এআইএ সম্মেলনে যোগ দেন। গত জানুয়ারি মাসে শপথ নেয়ার পর মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের এটাই প্রথম বিদেশ সফর। বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে এই সম্মেলনেই তাঁর প্রথম দেখা হয়। উগ্রবাদ ও সন্ত্রাসবাদ মোকাবিলায় নতুন অংশীদারিত্ব প্রতিষ্ঠা এবং নিরাপত্তা ও স্থিতিশীলতা জোরদারের ল্েয আয়োজিত এই সম্মেলনে ইসলামি চরমপন্থার বিরুদ্ধে লড়াই জোরদারের আহ্বান জানান প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। আর শেখ হাসিনা তাঁর লিখিত বক্তৃতায় বৈশ্বিক সন্ত্রাসবাদ দমনে সন্ত্রাসীদের অস্ত্র ও অর্থ সরবরাহ বন্ধ করাসহ ৪ দফা প্রস্তাব করেন। শেখ হাসিনা কর্তৃক পেশকৃত প্রস্তাবগুলো সম্মেলনে ব্যাপকভাবে প্রশংসিত হয়।