প্রতিবেদন

দেশের ভাবমূর্তি বিরোধী কিছু না করতে লন্ডন প্রবাসীদের প্রতি শেখ হাসিনার আহ্বান

স্বদেশ খবর ডেস্ক : প্রধানমন্ত্রী সুইডেন যাওয়ার পথে ১৪ জুন লন্ডনে প্রায় ২২ ঘণ্টা যাত্রাবিরতি করেন। ওই সময় বাংলাদেশ কমিউনিটির নেতৃবৃন্দ লন্ডনের স্ট্রোক পার্কে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন। সাক্ষাতে শেখ হাসিনা যুক্তরাজ্যের বসবাসরত প্রবাসী বাংলাদেশিদের দেশের ভাবমূর্তি ক্ষুণœ হয় এমন কিছু না করার আহ্বান জানান। শেখ হাসিনা যুক্তরাজ্যে অনুষ্ঠিত চ্যাম্পিয়ন্স কাপ ক্রিকেট ট্রফিতে সেমিফাইলে উন্নীত হওয়ায় বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের সকল সদস্য ও অন্যান্যদের ধন্যবাদ জানান। প্রধানমন্ত্রী যুক্তরাজ্যের পার্লামেন্ট নির্বাচনে বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত তিন কন্যাকে নির্বাচনে জয়ী হতে সর্বাত্মক সহযোগিতা দেয়ায় যুক্তরাজ্যে বাংলাদেশ কমিউনিটি জনগণকে ধন্যবাদ জানান।
এর আগে নবনির্বাচিত লেবার পার্টি কমন্স সভার সদস্য টিউলিপ রেজওয়ানা সিদ্দিক ও রুশনারা আলী প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে তার হোটেল কক্ষে সৌজন্য সাক্ষাৎ করেন। প্রধানমন্ত্রী তাদের সঙ্গে পারস্পরিক স্বার্থ-সংশ্লিষ্ট বিষয় নিয়ে আলোচনা করেন।
এদিকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা প্রবল মৌসুমি বৃষ্টিপাতের ফলে রাঙ্গামাটিতে ধারাবাহিক ভূমিধসে ৫ সেনা সদস্যসহ দেড় শতাধিক লোকের প্রাণহানি ও অনেকে আহত হওয়ার খোঁজখবর নেন এবং তিন জেলায় উদ্ধার ও পুনর্বাসন কার্যক্রম সম্পর্কে তার মুখ্যসচিব ড. কামাল নাসেরের কাছ থেকে জানতে চান।
বাংলাদেশ কমিউনিটির নেতৃবৃন্দের উদ্দেশে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘এক সময় বাংলাদেশ ভিক্ষুকের দেশ, প্রাকৃতিক দুর্যোগ ও তলাবিহীন ঝুড়ি হিসেবে পরিচিত ছিল। আমরা এসব পরিস্থিতি মোকাবিলা করে দেশকে উন্নয়নে রোল মডেলে পরিণত করেছি। কাজেই আপনারা এমন কিছু করবেন না যাতে বহির্বিশ্বে দেশের ভাবমূর্তি ক্ষুণœ হয়।’ আমাদের উন্নয়ন অনেক বিদেশি নেতৃবৃন্দের কাছে জাদুর মতো। কিন্তু এটা আমাদের জন্য জাদু নয়, দেশের জনগণের সেবার আন্তরিকতা। জাতির জনকের কন্যা হিসেবে এমনকি আওয়ামী লীগের একজন কর্মী হিসেবে সোনার বাংলা গড়ে তোলার পদক্ষেপ নেয়াই আমার সর্বোচ্চ প্রচেষ্টা। দেশ-বিদেশের প্রতিটি আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীর দায়িত্ব দেশের উন্নয়ন, দেশের ভাবমূর্তি উজ্জ্বল এবং বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নকে বাস্তব রূপ দেয়ার জন্য আত্মনিবেদিত হয়ে কাজ করা।