প্রতিবেদন

আরেকটি ওয়ান-ইলেভেন সৃষ্টির পাঁয়তারা করছে বিএনপি- ওবায়দুল কাদের

নিজস্ব প্রতিবেদক : আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ‘সংবিধানের ষোড়শ সংশোধনী বাতিলের রায়ের পর্যবেণকে কেন্দ্র করে যে বিষাক্ত পরিবেশ সৃষ্টি হয়েছে, বিএনপিই তার উসকানিদাতা। এ রায় নিয়ে দেশে বিষাক্ত পরিবেশ সৃষ্টির উসকানি দিয়ে দেশে অস্থিতিশীল পরিবেশ সৃষ্টির মাধ্যমে বিএনপি আরেকটি ওয়ান-ইলেভেন সৃষ্টির পাঁয়তারা করছে। তবে তাদের এ স্বপ্ন বাস্তব করতে দেয়া হবে না। বাংলার মাটিতে আর ওয়ান ইলেভেন হতে দেয়া হবে না।’ ২৩ আগস্ট জাতীয় ক্রীড়াপরিষদ মিলনায়তনে শেখ রাসেল জাতীয় শিশু-কিশোর পরিষদ আয়োজিত জাতীয় শোক দিবসের আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে ওবায়দুল কাদের এসব কথা বলেন।
ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘সুপ্রিমকোর্টের রায় নিয়ে উসকানিমূলক বক্তব্য দিয়ে বিএনপি আরেকটি ইস্যু তৈরি করার অপচেষ্টা করছে। তারা হয়ত ভাবছে এই সরকারের রা নেই, ভেবেছে তাদের সুবর্ণ বিজয় সমাগত। ময়ূরসিংহাসন তাদের জন্য অপো করছে। কিন্তু তাদের দিবা-স্বপ্নের ফাঁপা বেলুন অচিরেই চুপসে যাবে।’ তিনি বলেন, পিলখানার হত্যাকা-ের পরও তারা এমনটি ভেবেছিল। কিন্তু এমন অবাস্তব স্বপ্ন বাস্তবায়িত হয়নি, ভবিষ্যতেও হবে না।
‘আওয়ামী লীগকে চরম মূল্য দিতে হবে’ মর্মে সম্প্রতি বিএনপি নেতা ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদের বক্তব্যের প্রসঙ্গ টেনে ওবায়দুল কাদের বলেন, চরম মূল্য আওয়ামী লীগকে নয়, বিএনপিকেই দিতে হবে। আদালতের রায় বিএনপিকে মতায় বসাবে! দেশের জনগণ বিএনপির মতার স্বপ্নের সঙ্গে নেই বলেও মন্তব্য করেন ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেন, মতায় থেকেও আমরা সুসময়ে নেই। কিছুদিন পরপরই দুঃসময়। অবিরাম ষড়যন্ত্রের মধ্য দিয়ে কণ্টকাকীর্ণ পথে শেখ হাসিনা সরকারের পথচলা। গত সাড়ে ৮ বছর আমাদের চলার পথ কখনো পুষ্প বিছানো ছিল না। বারে বারে আমরা কণ্টকাকীর্ণ পথ অতিক্রম করেছি।
ওবায়দুল কাদের বলেন, আন্দোলনের ডাক দিয়ে খালেদা জিয়া লন্ডনে বসে আছেন। অথচ ‘সুপ্রিমকোর্টের একটা রায়কে কেন্দ্র করে তারা ধরেই নিল বিজয়ের স্বর্ণ দুয়ার বুঝি সমাগত। নির্বাচন এখনও অনেক দূরে। তারা মনে করেছে, এই সুবর্ণ সুযোগ পাওয়া গেল হারানোর ময়ূর সিংহাসন ফিরে পেতে।’ তিনি বলেন, ‘দিল্লি বহুদূর। সেই রঙিন স্বপ্ন ভেঙে যাবে। তাই বিদ্বেষ ও অন্ধ আক্রোশ নিয়ে কথা বলছেন। শক্তি কমে আসছে সেজন্য মুখের বিষ খুব উগ্র হয়েছে।’
‘২১ আগস্ট ও ১৫ আগস্ট জাতীয় দুর্ঘটনা, এই ধরনের দুর্ঘটনা হতেই পারে’ মর্মে সম্প্রতি বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য খন্দকার মোশাররফ হোসেনের বক্তব্যের সমালোচনা করে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘এটা ইতিহাস ও সত্যের সঙ্গে নির্মম ও নিষ্ঠুর তামাশা। মোশাররফ সাহেব, হ্যাঁ; জাতীয় দুর্ঘটনা। কারণ আপনারা তো ধরেই নিয়েছিলেন গ্রেনেড হামলায় শেখ হাসিনা শেষ হয়ে গেছেন। কিন্তু শেখ হাসিনা আল্লাহর রহমতে বেঁচে গেছেন, এটা তো জাতীয় দুর্ঘটনাই। শেখ হাসিনাকে মারতে গেছেন, কিন্তু তিনি বেঁচে গেছেন। এটা তো আপনাদের কাছে জাতীয় দুর্ঘটনা হবেই।’