প্রতিবেদন

২১ আগস্টের গ্রেনেড হামলা ॥ মন্ত্রিসভায় শোক ও নিন্দা প্রস্তাব

নিজস্ব প্রতিবেদক : রাজধানীর বঙ্গবন্ধু এভিনিউতে ২০০৪ সালের ২১ আগস্ট আওয়ামী লীগের সন্ত্রাসবিরোধী সমাবেশে গ্রেনেড হামলার ঘটনায় মন্ত্রিসভায় শোক ও নিন্দা প্রস্তাব গ্রহণ করা হয়েছে। ২১ আগস্ট প্রধানমন্ত্রীর তেজগাঁও কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত মন্ত্রিসভার বৈঠকে এ প্রস্তাব গ্রহণ করা হয়। বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বৈঠক শেষে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের সচিব (সমন্বয় ও সংস্কার) এম এন জিয়াউল আলম বলেন, ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলার ঘটনায় অনেক নিহত ও আহত হয়েছেন। মন্ত্রিপরিষদের বৈঠকে নিহতদের রুহের মাগফিরাত কামনা করা হয়। এছাড়া নৃশংস এ ঘটনায় শোক ও নিন্দা প্রস্তাব গ্রহণ করা হয়।
সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, মন্ত্রিসভা বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, সব সরকারের আমলেই আমাকে টার্গেট করে বোমা, গ্রেনেড হামলা ও গুলির ঘটনা ঘটেছে। আলোচনার এক পর্যায়ে পানি সম্পদমন্ত্রী ব্যারিস্টার আনিসুল ইসলাম মাহমুদকে ইঙ্গিত করে শেখ হাসিনা বলেন, ওনাদের আমলেও চট্টগ্রামের জনসভায় গুলি চালানোর ঘটনা ঘটেছিল এবং ওই ঘটনায় বেশ কয়েকজন নিহত হন। ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলার স্মৃতিচারণ করতে গিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এসব কথা বলেন। শেখ হাসিনা বলেন, ২১ আগস্টের আগে তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়া বলেছিলেন, আরেকটি ১৫ আগস্টের ঘটনা ঘটবে। এ কথা বলার কিছুদিন পরই ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলার ঘটনা ঘটে।
২০০৪ সালের ২১ আগস্ট রাজধানীর বঙ্গবন্ধু এভিনিউতে আওয়ামী লীগের সন্ত্রাসবিরোধী শান্তি সমাবেশে গ্রেনেড হামলার ঘটনা ঘটে। হামলায় প্রয়াত রাষ্ট্রপতি জিল্লুর রহমানের সহধর্মিণী ও আওয়ামী লীগের মহিলা বিষয়ক সম্পাদক আইভী রহমানসহ ২৪ নেতাকর্মী নিহত হন। আহত হয় আরও ৪০০। তবে অল্পের জন্য বেঁচে যান বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাসহ আওয়ামী লীগের শীর্ষ স্থানীয় কয়েক নেতা। আহতদের অনেকেই চিরতরে পঙ্গু হয়ে গেছেন। তাদের কেউ কেউ আর স্বাভাবিক জীবন ফিরে পাননি।