রূপচর্চা

| December 18, 2017

যে ভুল এড়ানো জরুরি

ত্বকের যতেœ কিছু ভুল এড়িয়ে চলা অত্যন্ত জরুরি। ত্বকের যতœ নিয়ে ভাবেন না এমন আধুনিক মানুষ এ যুগে খুব কমই আছেন। ভাববেনই না কেন, ত্বক শরীরের গুরুত্বপূর্ণ স্পর্শকাতর অংশগুলোর একটি। তাছাড়া কথায় আছে প্রথমে দর্শনদারি, পরে গুণবিচারি। তাই ত্বকের যতেœ বেশ পরিপাটি হওয়া উচিত। অনেকে আবার যতœ নিতে গিয়ে করে ফেলেন বাড়াবাড়ি। সুন্দর ত্বক বজায় রাখতে নিচের ভুলগুলো এড়িয়ে যাওয়াই বুদ্ধির কাজ। স্বদেশ খবর পাঠকদের জন্য এসব বিষয়ে জানাচ্ছেন ফারহানা জাহান মৌ।
বেশি ঘষামাজা করবেন না
এক্সফোলিয়াশনের েেত্র সহজ ও আরামদায়ক বিষয়গুলোর দিকে নজর দিতে হবে। বেশি ঘষামাজা হলে ত্বকে লালচে ভাব আসে, জ্বালা করে ও পিচ্ছিল হয়ে যায়। সাধারণত ত্বকে সপ্তাহে ২ বার এক্সফোলিয়াশন যথেষ্ট। অন্যদিকে ত্বকের বয়সের লণ দেখা যাওয়ার আগে অ্যান্টি-এজিং ক্রিম ব্যবহার করা ঠিক নয়, যা ত্বকের কোনো কাজে লাগে না। অনেক েেত্র তিকর হয়ে ওঠে।

অতিরিক্ত ময়েশ্চারাইজার
ময়েশ্চারাইজারের েেত্র ত্বকের মানিয়ে নেয়াকে প্রাধান্য দিতে হবে। যেমন ত্বকে ময়েশ্চারাইজার মানিয়ে গেলে তৈলাক্তভাব থাকে না। দিনে ব্যবহৃত ময়েশ্চারাইজারে এসপিএফ (সান প্রোটেকশন ফ্যাক্টর) থাকা উচিত। রাতের ক্রিম শুধু রাতেই ব্যবহার করবেন। তাতে যেন কোনো ধরনের সূর্যালোক প্রতিরোধকারী উপাদান না থাকে। কখনও চোখের চারপাশে ময়েশ্চারাইজার লাগাবেন না। যার কারণে ওইখানকার ত্বক তিগ্রস্ত হয়ে সাদা দাগ দেখা দিতে পারে। এছাড়া ত্বকের তিতে সূর্যালোকের উল্লেখযোগ্য ভূমিকা রয়েছে। বিশেষ করে ত্বক কুঁচকে যাওয়া। এটা যেকোনো ঋতুর েেত্র প্রযোজ্য। তাই এসপিএফসমৃদ্ধ ময়েশ্চারাইজার প্রতিদিনের বিউটি রুটিনে গুরুত্বপূর্ণ উপাদান।

ফেস মাস্কে সতর্কতা
ময়েশ্চারাইজারের ধরনের সঙ্গে মিলিয়ে ফেস মাস্ক বেছে নিন। কারণ তৈলাক্ত ত্বক ও শুকনো ত্বকের ময়েশ্চারাইজার ও ফেস মাস্ক আলাদা-ই হবে। এটা একটা কমপ্লিট প্যাকেজ। একটা থেকে আরেকটাকে আলাদা করলে চলবে না। প্রতিটিতে পুষ্টি উপাদানের
তফাৎ রয়েছে। এছাড়া অনেক টিস্যু পেপারে তিকর কেমিক্যাল থাকে। কোনো কোনো েেত্র টিস্যুতে থাকা উচ্চমাত্রার অ্যালকোহল ত্বক শুকিয়ে ফেলে। তাই মুখের ত্বকের জন্য মানানসই টিস্যু না হলে ত্বক বিশেষ করে চোখের চারপাশে জ্বালাপোড়া করে বা লাল হয়ে যায়।

মেকআপ নিয়ে ঘুম মানা
ময়লা, তেল ও মেকআপ ব্রণ ও নানা ধরনের ফোড়ার কারণ হতে পারে। তাই ঘুমানোর আগে বা বাসায় ফিরে শিগগির মেকআপ তুলে ফেলুন। সেইসঙ্গে ঘনঘন ব্র্যান্ড পাল্টানো উচিত নয়। সত্যি যদি কোনো নতুন প্রোডাক্টের কার্যকারিতা সম্পর্কে ধারণা পেতে চান, তাহলে কমপে তিন মাস এটি ব্যবহার করা উচিত। যদি দেখেন ত্বকের সঙ্গে যাচ্ছে না, তবে দ্রুত পরিবর্তন করুন।

সতেজ থাকার টিপস অ্যান্ড ট্রিকস
ক্স প্রতিদিনের খাদ্য তালিকায় পুষ্টিকর খাবার রাখার চেষ্টা করা উচিত। অক্সিডেটিভ ড্যামেজ রোধ করার জন্য প্রতিদিন প্রচুর সবজি এবং ফলমূল খেতে হবে। তাছাড়া প্রতিদিন পর্যাপ্ত পরিমাণ প্রোটিনও খেতে হবে যেন ত্বকের তি পুষিয়ে নেয়া সম্ভব হয়।
ক্স প্রতিদিন ৭ থেকে ৮ ঘণ্টা ঘুমানো উচিত। কারণ ঘুমের সময় ত্বক সারাদিনের তি সারিয়ে তুলতে পারে।
ক্স অ্যালকোহল, সিগারেট এবং মাদক দ্রব্য এড়িয়ে চলতে হবে। আর প্রতিদিনই হালকা ব্যায়ামের অভ্যাস তৈরি করতে হবে। প্রতিদিনের ব্যায়াম ত্বকের যৌবন ধরে রাখতে সাহায্য করে।
ক্স ত্বকে বয়সের ছাপ ফেলার পেছনে সূর্যের তিকর রশ্মি অনেকাংশে দায়ী। তাই সূর্যের আলো যেন সরাসরি ত্বকে না লাগে সেদিকে খেয়াল রাখা জরুরি। সূর্যের অতিবেগুনি রশ্মি থেকে ত্বক রা করার জন্য এসপিএফ ৩০ বা এর বেশি উপাদানসমৃদ্ধ সানস্ক্রিন ক্রিম ব্যবহার করা জরুরি।

Category: ফিচার

About admin: View author profile.

Comments are closed.