প্রতিবেদন

গণহত্যার কথা স্বীকার করলেন মিয়ানমারের সেনাপ্রধান

স্বদেশ খবর ডেস্ক : রোহিঙ্গা হত্যাকা-ের বিষয়ে এই প্রথম স্বীকারোক্তি দিলেন মিয়ানমারের সেনাপ্রধান মিন অং হ­াইয়াং। ১০ জানুয়ারি ফেসবুকে দেয়া এক পোস্টে ১০ রোহিঙ্গাকে হত্যার কথা স্বীকার করেন তিনি। তবে বরাবরের মতোই রোহিঙ্গাদের ‘বাঙালি জঙ্গি’ হিসেবে আখ্যা দিয়েছেন।
ফেসবুক পোস্টে মিয়ানমার সেনাপ্রধান বলেন, গ্রামবাসী ও আইনশৃঙ্খলা রাকারীরা মিলে বাঙালি জঙ্গিদের বিরুদ্ধে এ হত্যাকা- চালিয়েছে। তাদের প্রথমে আটক এবং পরে হত্যা করা হয়। তার ভাষায়Ñ ইনদিন গ্রামের কয়েকজন এবং আইনশৃঙ্খলা রাকারী বাহিনীর কয়েক সদস্য স্বীকার করেছেন যে, তারা ১০ বাঙালি জঙ্গিকে হত্যা করেছেন। ২০১৭ সালের ২ সেপ্টেম্বর ওই হত্যাকা- চালানো হয়।
নিহতদের গণকবর খুঁজে পাওয়ার পর এ নিয়ে ব্যাপক সমালোচনার মুখে পড়ে মিয়ানমার। অবশ্য এ বিষয়ে তদন্ত করে ঘটনার সত্যতা পাওয়ার পরই সেনাপ্রধান ফেসবুকে স্ট্যাটাস দেন বলে জানিয়েছে আন্তর্জাতিক সংবাদ মাধ্যম।
গত ২৪ আগস্ট রাতে মিয়ানমারের রাখাইনে পুলিশের ৩০টি তল্লাশি চৌকি ও একটি সেনাঘাঁটিতে হামলার পর ব্যাপক অভিযান শুরু করে দেশটির সেনাবাহিনী। নির্বিচারে হত্যা, ধর্ষণ, লুটপাট ও অগ্নিসংযোগের মুখে ঘর-বাড়ি ছেড়ে পালিয়ে আসতে শুরু করে রোহিঙ্গারা। ঘটনার পর চার মাসে প্রাণ বাঁচাতে বাংলাদেশে আশ্রয় নেয় সাড়ে ছয় লাখেরও বেশি রোহিঙ্গা।
এটিকে ‘জাতিগত নির্মূল অভিযান’ হিসেবে বর্ণনা করে আসছে জাতিসংঘ। আর স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন মেদসঁ সঁ ফ্রঁতিয়ের এক প্রতিবেদনে জানায়, রাখাইনে এক মাসেই ৬ হাজার ৭০০ মানুষকে হত্যা করা হয়। শত শত রোহিঙ্গা গ্রাম জ্বালিয়ে দেয়ার প্রমাণও উঠে এসেছে স্যাটেলাইট চিত্রে।