প্রতিবেদন

২২তম প্রধান বিচারপতি হিসেবে নিয়োগ পেলেন সৈয়দ মাহমুদ হোসেন

নিজস্ব প্রতিবেদক
দেশের ২২তম প্রধান বিচারপতি হিসেবে নিয়োগ পেয়েছেন বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন। রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ তাঁকে এ পদে নিয়োগ দেয়ার পর ২ ফেব্রুয়ারি আইন মন্ত্রণালয় এ সংক্রান্ত প্রজ্ঞাপন জারি করে। ৩ ফেব্রুয়ারি প্রধান বিচারপতিকে শপথবাক্য পাঠ করান রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ।
গত ১০ নভেম্বর প্রধান বিচারপতির পদ থেকে পদত্যাগ করেন বিচারপতি এস কে সিনহা। ওই পদত্যাগের ৮৫ দিন পর প্রধান বিচারপতি নিয়োগ দেয়া হলো। এই সময়ে ভারপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন আপিল বিভাগের জ্যেষ্ঠ বিচারক বিচারপতি মো. আবদুল ওয়াহাব মিঞা।
বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন আপিল বিভাগের দ্বিতীয় জ্যেষ্ঠ বিচারক। ২০০১ সালে ২২ ফেব্র“য়ারি তিনি হাইকোর্টের অতিরিক্ত বিচারপতি হিসেবে নিয়োগ পান। এর দুই বছর পর তিনি স্থায়ী বিচারপতি হন। হাইকোর্টে ১০ বিচারপতির দায়িত্ব পালন শেষে ২০১১ সালে ২৩ ফেব্র“য়ারি তিনি আপিল বিভাগের বিচারপতি হিসেবে নিয়োগ পান।
বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন ১৯৫৪ সালের ৩১ ডিসেম্বর কুমিল্লার নাঙ্গলকোট উপজেলায় জন্মগ্রহণ করেন। তার বাবার নাম সৈয়দ মুস্তফা আলী ও মায়ের নাম বেগম কাওসার জাহান।
সৈয়দ মাহমুদ হোসেন কুমিল্লা জেলা স্কুল থেকে ১৯৭২ সালে সেকেন্ডারি স্কুল সার্টিফিকেট, কুমিল্লা ভিক্টোরিয়া কলেজ থেকে ১৯৭৪ সালে এইচএসসি পরীক্ষা এবং একই কলেজ থেকে ১৯৭৬ সালে বিএসসি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হন। পরে ১৯৮০ সালে কুমিল্লা আইন কলেজ থেকে এলএলবি ডিগ্রি অর্জন করেন এবং ১৯৮১ সালে আইনজীবী হিসেবে জেলা বারের সনদপ্রাপ্ত হন। বিএসসি ও এলএলবি সম্পন্ন করে ১৯৮১ সালে জেলা জজ আদালতে কাজ শুরু করেন তিনি। এরপর ১৯৮৩ সালে হাইকোর্ট বিভাগে অ্যাডভোকেট হিসেবে তিনি অন্তর্ভুক্ত হন। ১৯৯৯ সালে ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল হিসেবে নিয়োগ পান। এছাড়াও তিনি লন্ডন ইউনিভার্সিটি স্কুল অব ওরিয়েন্টাল আফ্রিকান স্টাডিজ এবং ইনস্টিটিউট অব অ্যাডভান্সড লিগ্যাল স্টাডিজ থেকে ৬ মাসের কমনওয়েলথ ইয়াং ল’ইয়ার্স কোর্স সম্পন্ন করেন।