প্রতিবেদন

রোহিঙ্গাদের স্বাস্থ্য ও পুষ্টিসেবা উন্নয়নে বিশ্বব্যাংকের ৫ কোটি ডলার অনুদান

নিজস্ব প্রতিবেদক : রোহিঙ্গাদের জন্য সরকারের চলমান স্বাস্থ্য সেবা কর্মসূচি শক্তিশালীকরণে বিশ্বব্যাংক বাংলাদেশকে ৫ কোটি মার্কিন ডলার অনুদান সহায়তা দেবে। এই অর্থ কক্সবাজারে আশ্রয় নেয়া রোহিঙ্গাদের পুষ্টি ও স্বাস্থ্য সেবার উন্নয়ন এবং পরিবার পরিকল্পনায় ব্যয় করা হবে।
এ ল্েয ২০ সেপ্টেম্বর শেরেবাংলানগরে এনইসি সম্মেলনকে বাংলাদেশ সরকার ও বিশ্বব্যাংকের মধ্যে একটি অনুদান চুক্তি সই হয়েছে। অর্থনৈতিক সম্পর্ক বিভাগের (ইআরডি) সিনিয়র সচিব কাজী শফিকুল আযম এবং বিশ্বব্যাংকের কান্ট্রি ডিরেক্টর চিমিয়াও ফান নিজ নিজ পে চুক্তিপত্রে সই করেন।
চুক্তি সই অনুষ্ঠানে জানানো হয়, এই অর্থায়নের উদ্দেশ্য হলো কক্সবাজার জেলার স্থানীয় লোকজন এবং রোহিঙ্গা শরণার্থীদের জন্য এইচএনপিসহ অন্যান্য সেবা কার্যক্রম অব্যাহত রাখা। স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন স্বাস্থ্য সেবা বিভাগ এবং স্বাস্থ্য, শিা ও পরিবার কল্যাণ বিভাগের অধীনে এসব প্রকল্প বাস্তবায়ন হচ্ছে।
শফিকুল আযম বলেন, মিয়ানমার থেকে আসা রোহিঙ্গাদের মানবিক কারণেই বাংলাদেশ আশ্রয় দিয়েছে। এদের বেশির ভাগই হলো নারী ও শিশু। তাদের এখন সবচেয়ে বেশি প্রয়োজন স্বাস্থ্য সেবার।
তিনি বলেন, বিভিন্ন স্বাস্থ্য কেন্দ্রের মাধ্যমে তাদেরকে স্বাস্থ্য সেবা দেয়ার জন্য বিশ্বব্যাংক তার আঞ্চলিক শরণার্থী তহবিল থেকে ৫ কোটি ডলার দিয়েছে। উন্নয়ন সহযোগীরা তাদের দেয়া প্রতিশ্রুতির অর্থ ছাড় করবেন বলে তিনি আশা প্রকাশ করেন।
চিমিয়াও ফান বলেন, কুতুপালং ক্যাম্পসহ কক্সবাজারে প্রায় ১০ লাখ রোহিঙ্গা আশ্রয় নিয়েছে। তারা এখন বিভিন্ন রোগের ঝুঁকিতে রয়েছে। তাদের স্বাস্থ্য সেবার প্রয়োজন। বিশ্বব্যাংকের এই অনুদান রোহিঙ্গাদের স্বাস্থ্য ও পুষ্টি সেবার উন্নয়নে সহায়তা করবে বলে তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন।
উল্লেখ্য, ৫ কোটি ডলারের অনুদান সহায়তার মধ্যে ৪১ দশমিক ৬৭ মিলিয়ন ডলার পাওয়া যাবে বিশ্বব্যাংকের আইডিএ শাখা থেকে এবং ৮ দশমিক ৩৩ মিলিয়ন ডলার কানাডা সরকারের নিকট থেকে অনুদান হিসেবে পাওয়া যাবে।