ফিচার

শীতকালে রাতে যে রূপচর্চা করবেন

ত্বক যখন রু হয়ে ওঠে তখনই বুঝতে হবে শীতের আগমন ঘটছে। শীতকালে ত্বক চায় একটু আলাদা যতœ। এ জন্য শীতে নিয়মিত ত্বকের যতœ নেয়া উচিত। কিন্তু ব্যস্ততার এই যুগে কার বা সময় আছে আলাদাভাবে ত্বকের একটু বেশি যতœ নেয়ার। কিন্তু ঠিকমতো যতœ না নিলে ত্বক উজ্জ্বলতা হারায়, ত্বকের উপরিভাগ কালো হয়ে আসে এবং ত্বক ফেটে যায়। তাই স্বদেশ খবর চলতি সংখ্যায় দেয়া হলো ৩টি ফেসিয়াল মাস্ক, যা ত্বককে শীতের প্রকোপ থেকে বাঁচতে সাহায্য করবে। সারাদিন যারা কাজের ব্যস্ততায় সময় করে উঠতে পারেন না তারা রাতে বাসায় ফিরে ঘুমানোর আগে অনায়াসে ফেসিয়াল মাস্ক তৈরি করে ত্বকে উজ্জ্বলতা ফিরিয়ে আনতে পারেন।

চিনি ও অলিভ অয়েলের
ফেসিয়াল মাস্ক
সব ধরনের ফেসিয়াল মাস্কের মধ্যে এই মাস্কটি তৈরি করা সবচেয়ে সহজ। কারণ এই মাস্কটির উপাদান সহজলভ্য কিন্তু এর কার্যকারিতা অনেক বেশি। অলিভ অয়েল ত্বককে কোমল করে এবং চিনি ত্বকের উপরিভাগের মরা কোষ দূর করে।
প্রস্তুত প্রণালি: এই মাস্কটি তৈরি করতে আপনার লাগবে চিনি ও অলিভ অয়েল। ২ চা-চামচ চিনি ও ২ চা-চামচ অলিভ অয়েল নিয়ে ভালোভাবে মিশিয়ে নিন। মেশাতে পারেন কয়েক ফোঁটা লেবুর রসও।
এটা দাগছোপ দূর করতে সহায়তা করবে। এরপর এই মিশ্রণটি হাতের তালুতে নিয়ে মুখের ত্বকে হালকাভাবে ঘষে লাগান। মুখে এই মিশ্রণটি ১০ মিনিট রেখে হালকা গরম পানি দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলুন। এভাবে সপ্তাহে ২-৩ বার করুন। ত্বকের উজ্জ্বলতা আপনি নিজেই দেখতে পাবেন।

ওটমিল ও মধুর ফেসিয়াল মাস্ক
ওটমিল বর্তমানে সবাই আমরা চিনি। ওজন কমাতে ওটমিলের জুড়ি নেই। কিন্তু আমরা অনেকেই জানি না ওটমিল ত্বকের জন্য কতটা উপকারি। ওটমিল একটি প্রাকৃতিক স্ক্র্যাবার। ওটমিলের সাথে মধুর ফেসিয়াল মাস্কটি ত্বকের যতেœ অত্যন্ত কার্যকরী। ওটমিল ত্বকের উপরিভাগ স্ক্র্যাব করে উজ্জ্বল করে। আর মধুর অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট উপাদান ত্বককে ব্রনের হাত থেকে রা করে ও কমনীয়তা বজায় রাখে। প্রস্তুত প্রণালি: এই ফেসিয়াল মাস্কটির জন্য আপনার লাগবে ১ কাপ ওটমিল, ১ চা-চামচ দই, ১টি ডিমের সাদা অংশ ও পরিমাণমতো মধু। প্রথমে ব্লেন্ডারে ১ কাপ ওটমিল নিয়ে ব্লেন্ড করে মিহি গুঁড়ো করে নিন। এরপর একটি পাত্রে মিহি গুঁড়ো করা ওটমিল, ১ চা-চামচ দই ও ১টি ডিমের সাদা অংশ নিয়ে মিশ্রণ তৈরি করুন। এরপর এতে মধু মেশান। মিশ্রণটি পেস্টের মতো হলে মধু মেশানো বন্ধ করুন। এরপর এই পেস্টটি মুখে মাস্কের মতো লাগান। ১০ মিনিট পর কুসুম গরম পানি দিয়ে আলতো ঘষে তুলে ফেলুন। এভাবে সপ্তাহে ২ বার করলে ত্বকের রুতা দূর করতে
পারবেন।

স্ট্রবেরি ও দইয়ের ফেসিয়াল মাস্ক
শীতকালীন ফল স্ট্রবেরি খেতে যতটা সুস্বাদু ততোটাই উপকারী। স্ট্রবেরি প্রাকৃতিকভাবে ত্বকের কোমলতার জন্য একটি অসাধারণ উপাদান। স্ট্রবেরির বাইরের অংশের ছোট ছোট বীজ খুব ভালো একধরনের স্ক্র্যাবার। অন্যদিকে দই ত্বকের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধিতে সব সময়ের জন্যই উপকারী।
প্রস্তুত প্রণালি: এই মাস্কটি তৈরি করতে লাগবে ২-৩টি স্ট্রবেরি ও ২ চা-চামচ দই। প্রথমে একটি বাটিতে ২-৩ টি স্ট্রবেরি নিয়ে চামচের মাধ্যমে ম্যাশ করুন। এরপর এতে ২ চা-চামচ দই নিয়ে খুব ভালো করে মিশিয়ে নিন। তারপর মিশ্রণটি আলতো ঘষে ত্বকে লাগান। ১৫ থেকে ২০ মিনিট এই মিশ্রণটি ত্বকে থাকতে দিন। তারপর কুসুম গরম পানি দিয়ে মুখ ধুয়ে একটি পাতলা তোয়ালে দিয়ে পানি মুছে ফেলুন। এই মাস্কটি ত্বকের উজ্জ্বলতা ও কোমলতা বৃদ্ধির সাথে সাথে ত্বকে একটি মিষ্টি সুগন্ধ তৈরি করে।