ফিচার

ক্যাডেট কলেজে ভর্তির নিয়মকানুন ও প্রস্তুতি সম্পর্কে জেনে নিন

স্বদেশ খবর ডেস্ক : বাংলাদেশের শিক্ষাক্ষেত্রে ক্যাডেট কলেজসমূহ একটি আস্থা ও নির্ভরতার প্রতীক। ইতোমধ্যে ক্যাডেট কলেজসমূহ শিক্ষাবোর্ডসমূহের সেরা শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের মুকুট অর্জন করেছে। বোর্ডের মেধাতালিকায় স্থান, শতভাগ পাসসহ যেকোনো বোর্ড পরীক্ষায় ক্যাডেট কলেজের রয়েছে ধারাবাহিক সাফল্যের রেকর্ড।
ক্যাডেট কলেজসমূহ বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর অ্যাডজুট্যান্ট জেনারেলের প্রত্যক্ষ তত্ত্বাবধানে পরিচালিত স্বায়ত্তশাসিত আবাসিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। এসব প্রতিষ্ঠান লেখাপড়ার পাশাপাশি সমান গুরুত্বের সাথে সহশিক্ষা কার্যক্রম পরিচালনা এবং উন্নত চারিত্রিক গুণাবলি বিকাশের মাধ্যমে ক্যাডেটদের সুনাগরিক ও চৌকস নাগরিক হিসেবে গড়ে তোলে। সামরিক অফিসারের তত্ত্বাবধানে ক্যাডেটদের প্রাথমিক সামরিক প্রশিক্ষণ এবং নেতৃত্ব প্রদানের মাধ্যমে এমনভাবে গড়ে তোলা হয় যাতে ভবিষ্যতে তারা সশস্ত্র বাহিনীসহ সমাজের সব ক্ষেত্রে যোগ্য নেতৃত্ব প্রদান করতে পারে।
বর্তমানে বাংলাদেশে ছেলেদের ৯টি এবং মেয়েদের ৩টিসহ মোট ১২টি ক্যাডেট কলেজ রয়েছে। এসব ক্যাডেট কলেজে প্রতি বছর ৬০০ ক্যাডেট ভর্তি করা হয়।
সামরিক বাহিনীতে ক্যারিয়ার গড়ার ইচ্ছা থাকে অনেকেরই। ক্যাডেট কলেজে ভর্তির মাধ্যমে সামরিক বাহিনীতে যোগদানের একটি সূচনা হয়।
সেবার সুবিধা: সামরিক বাহিনীতে যোগদানের স্বপ্ন পূরণের প্রাথমিক পদক্ষেপ। সার্বক্ষণিক সামরিক তত্ত্বাবধানে থাকা। দেশের সেবায় নিজের মেধা ও যোগ্যতা কাজে লাগানোর উৎসাহ প্রদান।
প্রক্রিয়া: সময় বদলে গেছে, তার সাথে সাথে উন্নত হচ্ছে তথ্যপ্রযুক্তি। এক সময় লম্বা লাইনে দাঁড়িয়ে ক্যাডেট কলেজসমূহে ভর্তির জন্য ফরম সংগ্রহ করতে হতো। ফরম ফিলাপ করতে বা জমা দিতে অনেক ঝামেলা পোহাতে হতো। আর এখন ঘরে বসেই অনলাইনে আবেদন করা যায়।
আবেদনে সকল তথ্য নির্ভুল ও সঠিক হতে হবে, অন্যথায় আবেদন গ্রহণ করা হবে না। আবেদনপত্র যাচাই-বাছাই করে উপযুক্ত হলে প্রার্থীকে জানানো হয়, এরপর নির্দিষ্ট পরীক্ষাকেন্দ্রে লিখিত, মৌখিক ও মেডিকেল পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। পরীক্ষায় উত্তীর্ণদেরকে নিয়মানুযায়ী ভর্তির প্রক্রিয়া সম্পর্কে অবহিত করা হয়।
উল্লেখ্য, সারাদেশে তীব্র প্রতিযোগিতামূলক পরীক্ষার মাধ্যমে সম্পূর্ণ মেধা ও যোগ্যতার ভিত্তিতে ছাত্রছাত্রী নির্বাচনের মাধ্যমে ক্যাডেট কলেজসমূহে প্রতি বছর ভর্তিপ্রক্রিয়া সম্পন্ন করা হয়ে থাকে।
সব ক্যাডেট কলেজে ৭ম শ্রেণিতে ক্যাডেট হিসেবে ছাত্রছাত্রী ভর্তির জন্য প্রয়োজনীয় যোগ্যতাসম্পন্ন প্রার্থীদের কাছ থেকে অনলাইনে আবেদনপত্র আহ্বান করা হয়। পরীক্ষার মাধ্যম বাংলা ও ইংরেজি। উভয় মাধ্যমে অংশ নেয়া যাবে। আবেদনপত্র পূরণের পদ্ধতি ও সময়সূচি অনলাইনে পাওয়া যাবে। অনলাইনে আবেদন করতে হবে। আবেদন ফরম পূরণ করার পর পাসপোর্ট সাইজের অনধিক ১৮০ী২২০ পিক্সেলের ২০০ কিলোবাইটের একটি ছবি আপলোড করতে হবে। সফলভাবে ছবি আপলোড হওয়ার পর পেমেন্ট বাটনে ক্লিক করতে এবং পরবর্তী নির্দেশনা অনুযায়ী কাজ করতে হবে। নির্দিষ্ট সময় পর ভর্তি প্রক্রিয়া সম্পন্ন হবে।

সেবার ধরন: নাগরিক সেবা।
বিভাগ: সশস্ত্র বাহিনী বিভাগ
যোগ্যতা: ক. জাতীয়তা- প্রার্থীকে জন্মসূত্রে বাংলাদেশি হতে হবে। খ. শিক্ষাগত যোগ্যতা- ৬ষ্ঠ শ্রেণি অথবা সমমানের ফাইনাল পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হতে হবে। গ. বয়স- ১ জানুয়ারি ২০১৯ তারিখে সর্বোচ্চ ১৩ বছর ৬ মাস। ঘ. শারীরিক যোগ্যতা- ১. উচ্চতা- ন্যূনতম ৪ ফুট ৮ ইঞ্চি (বালক/বালিকা উভয় ক্ষেত্রে প্রযোজ্য)। ২. সুস্থতা- প্রার্থীকে অবশ্যই শারীরিক ও মানসিকভাবে সুস্থ হতে হবে। ৩. দৃষ্টিশক্তি- দৃষ্টিমান চশমাবিহীন এক চক্ষুতে ৬/১২, অন্য চক্ষুতে ৬/১৮, চশমাসহ এক চক্ষুতে ৬/৬, অন্য চক্ষুতে ৬/৬।
অযোগ্যতা: ক. পূর্বে ক্যাডেট কলেজের ভর্তি পরীক্ষায় অবতীর্ণ হওয়া। খ. গ্রস নক নি, ফ্লাট ফুট, কালার ব্লাইন্ড ও অতিরিক্ত ওজন। গ. অ্যাজমা, মৃগী, হৃদরোগ, বাত, বাতজ্বর, যক্ষ্মা, পুরাতন আমাশয়, হেপাটাইটিস, ডিওডেনাল আলসার, রাতকানা, যেকোনো প্রকার ডায়াবেটিস, হেমোফাইলিয়া, বিছানায় প্রস্রাব করা ইত্যাদি রোগে আক্রান্ত।
বাংলাদেশের ক্যাডেট কলেজসমূহ: ঝিনাইদহ ক্যাডেট কলেজ, ফৌজদারহাট ক্যাডেট কলেজ, মির্জাপুর ক্যাডেট কলেজ, রাজশাহী ক্যাডেট কলেজ, সিলেট ক্যাডেট কলেজ, বরিশাল ক্যাডেট কলেজ, পাবনা ক্যাডেট কলেজ, ময়মনসিংহ গার্লস ক্যাডেট কলেজ, কুমিল্লা ক্যাডেট কলেজ, ফেনী গার্লস ক্যাডেট কলেজ, জয়পুরহাট গার্লস ক্যাডেট কলেজ।
প্রয়োজনীয় কাগজপত্র: ক. প্রার্থীর (বাংলা ও ইংরেজি ভার্সনে অধ্যয়নকৃত) প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী/ প্রাথমিক ইবতেদায়ী শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষার সত্যায়িত সনদপত্র। ৫ম/সমমান শ্রেণিতে ইংরেজি মাধ্যমে অধ্যয়নকৃত প্রার্থীর ক্ষেত্রে ওই শ্রেণিতে অধ্যয়নকৃত বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক কর্তৃক উত্তীর্ণের প্রত্যয়নপত্র। খ. প্রার্থীর জন্মনিবন্ধনের সত্যায়িত ফটোকপি। গ. প্রধান শিক্ষক কর্তৃক ষষ্ঠ অথবা সমমানের (যেকোনো মাধ্যম) পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হওয়ার সাল উল্লেখপূর্বক সনদপত্র। ঘ. প্রার্থীর পিতা/অভিভাবক ও মাতার মাসিক আয়ের স্বপক্ষে যথাযথ কর্তৃপক্ষের প্রত্যয়নপত্র। ঙ. প্রার্থীর পিতা/অভিভাবক ও মাতা উভয়ের জাতীয় পরিচয়পত্র এবং টিআইএন সনদের (যদি থাকে) সত্যায়িত ফটোকপি (জাতীয় পরিচয়পত্র না থাকলে যুক্তিযুক্ত কারণ প্রদর্শনপূর্বক প্রত্যয়নপত্র)। চ. অনলাইন আবেদনপত্রে আপলোড করা ছবির অনুরূপ এক কপি পাসপোর্ট ও এক কপি স্ট্যাম্প সাইজ (রঙিন) ছবি।
প্রয়োজনীয় খরচ: বিজ্ঞপ্তি অনুসারে।
ভর্তির সময়: বিজ্ঞপ্তি অনুসারে।
কাজ শুরু হবে: ক্যাডেট কলেজসমূহের ভর্তি অফিসে।
আবেদনের সময়: বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের পর ক্যাডেট কলেজ কর্তৃক স্থাপিত ঊ-নড়ড়ঃয ঙঁঃষবঃ এর মাধ্যমে আবেদন ও প্রয়োজনীয় কাগজপত্রাদি জমা। প্রার্থী ও অভিভাবকদের সুবিধার্থে অনলাইনে আবেদন এবং প্রার্থীর প্রয়োজনীয় কাগজপত্রাদি জমা নেয়ার জন্য দেশের প্রতিটি ক্যাডেট কলেজে এবং ঢাকা আর্মি স্টেডিয়ামে একটি করে ঊ-নড়ড়ঃয ঙঁঃষবঃ থাকবে। যেকোনো ঊ-নড়ড়ঃয ঙঁঃষবঃ এ উপস্থিত হয়ে যেকোনো পরীক্ষা কেন্দ্রের জন্য ঙহষরহব এ আবেদন এবং কাগজপত্রাদি জমা করা যাবে। প্রতিটি ঊ-নড়ড়ঃয ঙঁঃষবঃ এ আবেদন ফি জমা দেয়ার ব্যবস্থা থাকবে।
দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা: ভর্তি অফিসের দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা।
বিস্তারিত তথ্যের জন্য ভিজিট করুন: যঃঃঢ়ং://িি.িপধফবঃপড়ষষবমব.ধৎসু.সরষ.নফ