কলাম

পুঁজিবাজার চাঙা করতে ভালো কোম্পানিকে শেয়ারবাজারে সম্পৃক্ত করতে হবে

কোনো কোম্পানি লোকসানে পড়লেও ব্যাংকঋণের সুদ তাদের দিতেই হয়। কিন্তু পুঁজিবাজার থেকে মূলধন সংগ্রহ করতে সুদ দিতে হয় না, কেবল মুনাফার একটি অংশ লভ্যাংশ হিসেবে দিতে হয়। কোম্পানি লোকসান করলে আবার সেই লভ্যাংশও দিতে হয় না। শেয়ারবাজারে তালিকাভুক্ত হলে করপোরেট করেও বড় ছাড় পায় কোম্পানি। এর পরও দেখা যাচ্ছে, পুঁজিবাজার থেকে মূলধন সংগ্রহ লাভজনক হলেও অনেক ভালো কোম্পানি এই বাজারে আসতে চায় না। তাই পুঁজিবাজার থেকে মূলধন সংগ্রহ করাকে উৎসাহিত করতে আইপিওর দীর্ঘসূত্রতা কমানোসহ বিভিন্ন প্রণোদনা দেয়ার সুপারিশ করেছেন সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা।
এ কথা সত্য, দেশে স্থিতিশীল পুঁজিবাজার থাকলে বিদেশি বিনিয়োগ আরো বেশি আসত। কিন্তু দুঃখজনক হলেও সত্য যে, দেশের দুই পুঁজিবাজারই স্থায়ীভাবে স্থিতিশীল হতে পারেনি। এর অন্যতম কারণ বিনিয়োগকারীদের দক্ষতার ঘাটতি। এখনও শেয়ারবাজারে হুজুগে বিনিয়োগকারীর অভাব নেই। ফলে শেয়ার জালিয়াতরা এজাতীয় বিনিয়োগকারীদের সহজেই প্রতারিত করে কয়েক দিনের মধ্যে হাজার হাজার কোটি টাকা শেয়ারবাজার থেকে তুলে নিয়ে যেতে পারে।
বিদেশি বিনিয়োগ কাক্সিত পর্যায়ে থাকলে তা পুঁজিবাজারে গতি সঞ্চারে সহায়ক হবে। ভালো কোম্পানি কেন পুঁজিবাজারে আসতে চায় না, সেই প্রতিবন্ধকতাও কাটাতে হবে। শেয়ারবাজারে তালিকাভুক্তিতে আইনি বাধ্যবাধকতা নেই, সে েেত্র সমঝোতাই একমাত্র পন্থা। নিয়ন্ত্রক সংস্থাকেই উদ্যোগ নিয়ে ভালো ভালো কোম্পানিকে শেয়ারবাজারে নিয়ে আসতে হবে।
এটা ঠিক যে, কোনো উদ্যোক্তা শেয়ারবাজার থেকে অর্থ সংগ্রহের জন্য দুই-তিন বছর বসে থাকবে না। তারা যেখানে অর্থ পাবে, সেখানেই চলে যাবে। তাই শেয়ারবাজার থেকে অর্থ সংগ্রহ প্রক্রিয়া সহজ এবং স্বল্প সময়ে করার পদপে নেয়াও জরুরি। শেয়ারবাজারে তালিকাভুক্ত হলে সব থেকে বড় সুবিধা পাওয়া যায় করপোরেট করে। এত বড় সুবিধা পাওয়ার পরও কোম্পানিগুলো এ সুযোগ নিচ্ছে না। এর কারণ হলো, আইন থাকলেও তার বাস্তবায়ন নেই। ৩৫ শতাংশ করপোরেট করের কথা বলা আছে, কিন্তু এটা সঠিকভাবে বাস্তবায়ন হচ্ছে কি না, তা কেউ খতিয়ে দেখে না। এটাও পুঁজিবাজারে ভালো কোম্পানি না আসার আরেকটি কারণ।
গত আট-দশ বছরে হাতেগোনা দু-একটি ছাড়া ভালো কোনো কোম্পানি পুঁজিবাজারে আসেনি। ভালো কোম্পানিকে শেয়ারবাজারে আনতে যেসব সুবিধা দেয়া উচিত, তা দেয়ার পাশাপাশি আইপিওর দীর্ঘসূত্রতা কমানোর পদপে নিলে আশা করা যায় ভালো কোম্পানি পুঁজিবাজারে আসবে এবং এই বাজার নিরবচ্ছিন্নভাবে চাঙা থাকবে।