প্রতিবেদন

মতিঝিল ও উত্তরায় চালু হচ্ছে চক্রাকার বাস সার্ভিস

নিজস্ব প্রতিবেদক
রাজধানীর মতিঝিল ও উত্তরায় শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত সার্কুলার বাস সার্ভিস চালু করা হবে বলে জানিয়েছেন ঢাকা দেিণর মেয়র সাঈদ খোকন ও উত্তরের মেয়র আতিকুল ইসলাম। মতিঝিলে এপ্রিলের শেষের দিকে আর উত্তরায় মে মাসের প্রথম সপ্তাহের যেকোনো দিন এ সার্ভিস চালু হবে।
অপরদিকে নগরবাসীকে অধিক সুবিধা প্রদানের ল্েয দণি সিটি করপোরেশন এলাকায় চলমান সার্কুলার বাস সার্ভিসের সব সুবিধা ও অসুবিধা এবং যাত্রীদের অভিযোগ যাচাই-বাছাই শেষে উত্তরায় চক্রাকার বাস সার্ভিস চালু করা হবে বলে জানিয়েছেন উত্তরের মেয়র আতিকুল ইসলাম।
৩ এপ্রিল ডিএসসিসি সভাকে রাজধানীর গণপরিবহনে শৃঙ্খলা ফেরানোর ল্েয গঠিত বাস রুট র‌্যাশনালাইজেশন সংক্রান্ত কমিটির বৈঠক শেষে এ সিদ্ধান্তের কথা জানানো হয়।
মেয়র সাঈদ খোকন বলেন, ধানমন্ডি-নিউমার্কেট-আজিমপুরের মতো উত্তরা-মতিঝিলেও পৃথক চক্রাকার বাস সার্ভিস চালু হতে যাচ্ছে। চলতি মাসের শেষ সপ্তাহে মতিঝিলে চক্রাকার বাস সার্ভিস চালু হবে, মে মাসের প্রথম সপ্তাহে চালু হবে উত্তরায়। এ সেবার মাধ্যমে কম খরচে স্বচ্ছন্দে যাত্রীরা চলাচল করতে পারবেন। পাশাপাশি যানজট নিরসনেও চক্রাকার বাস ভূমিকা রাখবে। প্রতিটি বাসেই র‌্যাপিড পাস কার্ডের মাধ্যমে যাত্রীরা ভাড়া পরিশোধ করতে পারবেন।
মেয়র বলেন, নির্দিষ্ট কোম্পানির তত্ত্বাবধানে রাজধানীতে সাড়ে ৪ হাজার বাস নামানো হবে। পুরো রুট র‌্যাশনালাইজেশন কাজ শেষ হতে ২ বছর সময় লাগবে। কারণ এখানে টার্মিনাল, ডিপো, চালকদের প্রশিণের ব্যবস্থা করতে হবে। এসব চক্রাকার বাস রুট র‌্যাশনালাইজেশন প্রক্রিয়ার ছোট ছোট অংশ।
ধানমন্ডি-নিউমার্কেট-আজিমপুর রুটে চক্রাকার বাস সেবা ইতোমধ্যে চালু হয়েছে। এখনো হয়ত কিছুটা ত্রুটি-বিচ্যুতি রয়েছে। তবে আগামী ১৫ দিনের মধ্যেই যাত্রীরা এর সার্বিক সুবিধা ভোগ করতে পারবেন।
এর আগে মেয়র সাঈদ খোকনের সভাপতিত্বে কমিটির সভা অনুষ্ঠিত হয়। এ সময় ডিএনসিসি মেয়র আতিকুল ইসলাম, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের এসডিজির সমন্বয়ক আবুল কালাম আজাদ, বিআরটিসির চেয়ারম্যান ফরিদ উদ্দিন আহমেদ, বিআরটিএ চেয়ারম্যান মশিয়ার রহমান, পুলিশের অতিরিক্ত কমিশনার মো. রেজাউল আলম, সড়ক পরিবহন নেতা খন্দকার এনায়েত উল্লাহ, ডিটিসিএ নির্বাহী পরিচালক রকিবুর রহমান, গণযোগাযোগ বিশেষজ্ঞ সালাহউদ্দীনসহ কমিটির সদস্যগণ উপস্থিত ছিলেন।
সভায় মেয়র সাঈদ খোকন জানান, এসব চক্রাকার বাস চলাচলকারী রুটে সকল প্রকার বেসরকারি বাস আস্তে আস্তে উঠিয়ে দেয়া হবে। যাত্রীদের আরামে চলাচলের সকল ব্যবস্থা করা হবে।
পরিবহন মালিক সমিতির মহাসচিব খন্দকার এনায়েত উল্লাহ বলেন, চলমান সার্কুলার বাস সার্ভিস বিআরটিসি বাস দিয়ে ঢাকার নাগরিকদের চাহিদা কোনোক্রমেই মেটানো সম্ভব না। আমি চ্যালেঞ্জ দিয়ে বলতে পারি, এই সার্ভিস কিছুদিন পরেই বন্ধ হয়ে যাবে। আমার দীর্ঘ বছরের অভিজ্ঞতা বলে, এ সার্ভিস থাকবে না। যাত্রীসেবায় অনেক সরকারই অনেক প্রকল্প নিয়েছে, আমরাও সহায়তা করেছি। কিন্তু সরকারি বাস সকল রুটে চলাচল করলে আমাদের বাসমালিকগণ কোথায় যাবেন?
মেয়রদের উদ্দেশে তিনি ােভের সঙ্গে বলেন, তাহলে আমাদের সকল বেসরকারি বাস ঢাকায় বন্ধ করে দেন।
প্রতি উত্তরে মেয়র সাঈদ খোকন বলেন, আমরা তো সকলকে নিয়ে রাজধানীর রুট র‌্যাশনালাইজেশন করতে চাই। আমরা তো বেসরকারি সার্ভিস বন্ধ করে দিতে বলিনি। তাহলে রাজধানীতে চলাচলকারী বেসরকারি বাস মালিকগণ বিআরটিসির সঙ্গে প্রতিযোগিতায় আসুক।
এর আগে বিআরটিসির চেয়ারম্যান মোহাম্মদপুর থেকে কৃষি মার্কেট হয়ে আসাদগেট রুটে নতুন বাস সার্ভিস চালু করতে চাইলে মালিক সমিতির নেতা খন্দকার এনায়েত বলেন, সব রুটেই যদি বাস সার্ভিস চালু করে বিআরটিসি, তাহলে আমাদের কী হবে?
সভায় আতিকুল ইসলাম বলেন, আবরার হত্যাকা-ের পর ২৮ মার্চ আমার গুলশানের অফিসে ৫৮ জন ছাত্র প্রতিনিধিকে নিয়ে করা বিশেষ বৈঠকে সকল বাসের ড্রাইভারদের পোশাক পরিধান করার ওয়াদা করেন পরিবহন নেতা কালাম। একইসঙ্গে সকল বাসেই বাধ্যতামূলকভাবে ড্রাইভারের নাম ঠিকানা লাইসেন্স নাম্বারসহ মোবাইল নাম্বার দেয়ার জন্য ছাত্ররা দাবি জানালে উপস্থিত পরিবহন নেতারা তা মেনে নেন।
এ সময় খন্দকার এনায়েত বলেন, আমরা এমনিতেই ড্রাইভার পাই না তাহলে দিনে ২ জন ড্রাইভার কোথায় পাব? সবার নাম্বার কিভাবে দেব? কারণ সকাল বিকাল ড্রাইভারগণ চাকরি ছাড়ে। এই উদ্যোগ কিভাবে বাস্তবায়ন করা সম্ভব?
তিনি বলেন, আর পোশাক পরে কোনো চালক দুর্ঘটনা ঘটালে সকল পোশাক পরা চালককে ধরে ধরে জনগণ মেরে ফেলবে। তাই এসব বাস্তবায়ন করা সম্ভব নয়। আগে চালককে প্রশিণ দিতে হবে, তারপরই এসব উদ্যোগ বাস্তবায়ন করা হবে।
সভায় রাজধানীতে চলাচলকারী সকল বেসরকারি বাসকে ক্রমান্বয়ে রঙ করার জন্য অনুরোধ করা হলে পরিবহন নেতারা তা মেনে নেন।
সভা শেষে মেয়র আতিকুল ইসলাম বলেন, আমরা দণি সিটিতে চলাচলকারী চক্রাকার বাস সার্ভিসের সকল সুবিধা পর্যবেণ করছি। এসব বাসের চলমান সকল সমস্যা দেখেই পরবর্তীতে উত্তর সিটি করপোরেশনে প্রাথমিকভাবে উত্তরা এলাকায় চক্রাকার বাস সার্ভিস চালু করব। তাই একটু সময় নিচ্ছি। আমরা চাই নাগরিকদের জন্য স্থায়ী সেবা।
প্রসঙ্গত, রাজধানীর গণপরিবহনে শৃঙ্খলা ফেরানো ও যানজট নিরসনের ল্েয গত বছর সিনিয়র সচিব জাফর আহমেদ খান স্বারিত একটি প্রজ্ঞাপনের মাধ্যমে এ কমিটি গঠন করে স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের স্থানীয় সরকার বিভাগ।