ফিচার

এই রিমঝিম বর্ষায় পিঁয়াজের নাস্তা

স্বদেশ খবর ডেস্ক : বাইরে সারাক্ষণই রিমঝিম ধারায় বৃষ্টি পড়ছে। বাড়িতে থাকার জন্য দারুণ আবহাওয়া। বৃষ্টি বরাবরই বড় রোম্যান্টিক। এটা আপনি মানতে বাধ্য। বাইরে রিমঝিম হোক কিংবা ঝমঝমিয়ে বৃষ্টি আর ঘরের মধ্যে আপনি এবং আপনার সঙ্গী। পরিবেশটা কেমন হবে আন্দাজ করতে পারছেন নিশ্চয়ই। তবে রোম্যান্টিকতা অসম্পূর্ণ থেকে যাবে, যদি সঙ্গে পছন্দের কোনো খাবার না থাকে। আর বর্ষায় মচমচে পিঁয়াজ পকোড়া, বেরেস্তা, পোস্ত কিংবা চাটনির তো জুড়ি মেলা ভার। তাহলে আজ এমন বর্ষার দিনে শিখে নিন মচমচে পিঁয়াজ পকোড়া, বেরেস্তা ও চাটনি তৈরির পদ্ধতি। আর এখনই বানিয়ে ফেলুন। দেরি করবেন না। বৃষ্টি থেমে গেলে কিন্তু আর অতোটা ভালো নাও লাগতে পারে।

পিঁয়াজ পকোড়া

উপকরণ: ২টা পিঁয়াজ খুব ভালো করে কুচানো, বেসন ১ কাপ, কাঁচা মরিচ কুচি ২ চামচ, লবণ স্বাদমতো, হলুদ পরিমাণমতো, ধনেপাতা কুচানো ২ চামচ, তেল ও পানি পরিমাণমতো।
প্রস্তুত প্রণালি: প্রথমে পিঁয়াজকে খুব ভালো করে কেটে নিতে হবে। তারপর একটা বাটিতে পিঁয়াজ নিয়ে তার মধ্যে বেসন, লবণ, হলুদ, মরিচ কুচি, ধনেপাতা কুচনো সব দিয়ে ভালো করে মাখতে হবে। তারপর কড়াইয়ে তেল দিয়ে পিঁয়াজের মিশ্রণটা বল আকারে তৈরি করে একটা একটা করে তেলের মধ্যে ছাড়তে হবে। আর লাল লাল করে ভাজতে হবে। তারপর নামিয়ে গরম গরম চায়ের সাথে পরিবেশন করতে হবে।

পিঁয়াজ পোস্ত

উপকরণ: ১০০ গ্রাম পোস্ত, ৩টা পিঁয়াজ কুচি, ৩-৪টা কাঁচা মরিচ, ভাজার জন্য সরষে তেল ও পরিমাণমতো লবণ।
প্রস্তুত প্রণালি: পোস্তকে কাঁচা মরিচ দিয়ে বেটে নিতে হবে। পিঁয়াজ কুচি করে কেটে নিতে হবে। এবার কড়াইতে তেল গরম করে আগে পিঁয়াজকুচি ভালো করে ভেজে নিতে হবে, তারপর ওর মধ্যে পোস্ত বাটা, নুন দিয়ে ভালো করে কম আঁচে সময় নিয়ে ভাজতে হবে। ব্যাস, তৈরি হয়ে গেলো মজাদার পিঁয়াজ পোস্ত।
পিঁয়াজ বেরেস্তা

উপকরণ: পিঁয়াজ গোল গোল করে, পাতলা স্লাইস করে কেটে নিন এবং তেল পরিমাণমতো।
প্রস্তুত প্রণালি: প্রথমে কয়েকটি পিঁয়াজ নিতে হবে। পিঁয়াজগুলোর খোসা ছাড়িয়ে ধুয়ে পানি ঝরিয়ে ধারালো বটি বা ছুরি দিয়ে খুব মিহি করে কুচি করতে হবে। কুচিগুলো সব কাছাকাছি হতে হবে। কোনোটা মোটা কোনোটা বেশি চিকন করলে অর্ধেক পুড়ে যাবে, বাকি অর্ধেক নরম থাকবে। কুচি করা হলে পিঁয়াজের দ্বিগুণ তেল দিয়ে গরম করে পিঁয়াজ কুচি দিয়ে দিন। অল্প তেলে ভাজলে অনেক সময় নরম থাকে। মাঝারি আঁচে ২-৩ মিনিট ভাজুন। ভাজার শেষের দিকে কম আঁচে ভাজবেন। শেষের দিকে খুব দ্রুত রং হতে থাকে। পুরাপুরি হালকা লাল (বাদামি রং) হওয়ার আগে পিঁয়াজ তুলে ফেলবেন। বাদামি রং হওয়া পর্যন্ত চুলায় রাখলে পুড়ে যাবে এবং তিতা লাগবে। ভাজা হলে পেপার টিস্যুর ওপর রাখুন যেন অতিরিক্ত তেল শুষে নেয়। পোলাও, বিরিয়ানি, রোস্ট, কাবাবসহ বিভিন্ন খাবারে ব্যবহারে করা যায় এই বেরেস্তা। আর স্পেশাল রান্নায় পিঁয়াজ বেরেস্তা থাকবে না তাই কি হয়!

পিঁয়াজের চাটনি!

গরম গরম ভাত বা চুলা থেকে নামানো গরম গরম ভাজা রুটির সাথে খেতে খুব মজা লাগে এই চাটনি।
উপকরণ: বড় পিঁয়াজ ২টি, কাজু বাদাম ১/২ কাপ, টমেটো ১টি কুচি করা, শুকনো মরিচ (ঝাল যে যেমন খেতে পছন্দ করে), রসুন কুচি ১ টেবিল চামচ, সরিষা গুঁড়ো ১/২ চা চামচ, লবণ পরিমাণমতো, সরিষার তেল ২ টেবিল চামচ, চাটনি মশলা ১ চা চামচ, সাদা তিল ১ চা চামচ, তেঁতুল ক্বাথ ২ চা চামচ, ধনিয়া পাতা ১/২ কাপ।
প্রস্তুত প্রণালি: প্রথমে পিঁয়াজের খোসা ছাড়িয়ে ৪ ভাগ করে নিন। একটি কড়াইতে তেল দিয়ে এতে ধনিয়া পাতা বাদে সব উপকরণ দিয়ে দিন। পিঁয়াজ নরম হয়ে আসা পর্যন্ত ভাজুন। এবার নামিয়ে নিন। একটু ঠা-া হলে ব্লেন্ডারে দিয়ে দিন এবং ধনিয়া পাতা দিন। ভালোভাবে মিক্স করে পরিবেশন করুন মজাদার পিঁয়াজের চাটনি।