প্রতিবেদন

রোহিঙ্গা সমস্যা সমাধানে যুক্তরাজ্য সহায়তা দেবে: ব্রিটিশ হাইকমিশনার

নিজস্ব প্রতিবেদক
রোহিঙ্গা সমস্যা সমাধানে যুক্তরাজ্য বাংলাদেশের পাশে থাকবে বলে জানিয়েছেন বাংলাদেশে নিযুক্ত ব্রিটিশ হাইকমিশনার রবার্ট ডিকসন। তিনি বলেন, কফি আনান কমিশনের রিপোর্টের ভিত্তিতে রোহিঙ্গাদের নিরাপদ, স্বেচ্ছায় ও টেকসই প্রত্যাবাসনই এ সংকট সমাধানের বড় উপায়। বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী চীন সফর করেছেন। রোহিঙ্গা ইস্যুতে চীন সরকারের বক্তব্য ও অবস্থান খুবই উৎসাহব্যঞ্জক।
গত ৮ জুলাই গণমাধ্যমে কূটনৈতিক সংবাদদাতাদের সংগঠন ডিকাব আয়োজিত ‘ডিকাব টক’ অনুষ্ঠানে ব্রিটিশ দূত এসব কথা বলেন। বিস মিলনায়তনে এ অনুষ্ঠানে ডিকাব সভাপতি রাহীদ এজাজ সভাপতিত্ব করেন। স্বাগত বক্তব্য দেন সাধারণ সম্পাদক নূরুল ইসলাম হাসিব।
ব্রিটিশ হাইকমিশনার বলেন, রোহিঙ্গাদের নিজ দেশে ফিরিয়ে নিয়ে নাগরিকত্বসহ মৌলিক অধিকারগুলো নিশ্চিত করা হলে প্রত্যাবাসন টেকসই হবে। ব্রিটিশ সরকার এক্ষেত্রে সহায়তা দেবে। রাখাইনে সংঘটিত নৃশংসতার জন্য দায়ী সেনাকর্মকর্তাদের জবাবদিহিতা নিশ্চিত করা জরুরি। জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদে এজন্য প্রস্তাব পাস করাতে যুক্তরাজ্য চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। নৃশংসতা ও নিপীড়নের অভিযোগগুলোর যথাযথ তদন্ত করা খুবই জরুরি।
রবার্ট ডিকসন আরো বলেন, যেকোনো কার্যকর গণতন্ত্রের জন্য মুক্ত গণমাধ্যম, মতপ্রকাশের স্বাধীনতা খুবই প্রয়োজন। বাংলাদেশ এখন মধ্যম আয়ের দেশে উপনীত হওয়ার পথে। তাই এ অবস্থায় একটি সজাগ নাগরিকসমাজ গঠন জরুরি, যেখানে উন্মুক্ত বিতর্ক ও গণতন্ত্র চর্চার সুযোগ থাকবে। সেইসঙ্গে সুশাসন, লিঙ্গসমতা, গণতন্ত্র ও দারিদ্র্য দূরীকরণ দরকার।
এক প্রশ্নের জবাবে ব্রিটিশ হাইকমিশনার বলেন, বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারপারসন তারেক রহমানকে বাংলাদেশে ফেরত পাঠানোর বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেবে যুক্তরাজ্যের আদালত। এক্ষেত্রে যুক্তরাজ্য সরকারের কোনো ভূমিকা নেই।