বিনোদন

আসিফের বিরুদ্ধে প্রতারণা মামলার প্রতিবেদন দাখিলের তারিখ পেছাল

গীতিকার ও শিল্পী শফিক তুহিনের তোলা প্রতারণার অভিযোগে কণ্ঠশিল্পী আসিফ আকবরের বিরুদ্ধে দায়ের হওয়া মামলায় তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলের তারিখ পিছিয়েছে। নতুন তারিখ নির্ধারণ করা হয়েছে আগামী ১১ সেপ্টেম্বর। ২৩ জুলাই ঢাকার মুখ্য মহানগর হাকিম আদালতের বিচারক তোফাজ্জল হোসেন নতুন এই তারিখ ধার্য করেন।
গীতিকার, সুরকার শিল্পী শফিক তুহিন এই মামলার বাদি। তথ্য-প্রযুক্তি আইনে করা মামলার এজাহারে তিনি অভিযোগ করেন, ২০১৮ সালের ১ জুন আনুমানিক রাত ৯টার দিকে চ্যানেল টুয়েন্টিফোর-এর সার্চ লাইট নামের অনুসন্ধানী প্রতিবেদনের মাধ্যমে তিনি জানতে পারেন, আসিফ আকবর অনুমতি ছাড়াই তার সংগীতকর্মসহ অন্যান্য গীতিকার, সুরকার ও শিল্পীদের ৬১৭টি গান সবার অজান্তে বিক্রি করে দিয়েছে।
পরে তিনি জানতে পারেন, আসিফ আকবর আর্ব এন্টারটেইনমেন্টের চেয়ারম্যান হিসেবে অন মোবাইল প্রাইভেট লি. কনটেন্ট প্রভাইডার, নেক্সনেট লিমিটেড, গাক মিডিয়া বাংলাদেশ লি. ও অন্যান্য প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে গানগুলো ডিজিটালে রূপান্তরের মাধ্যমে ট্রু-টিউন, ওয়াপ-২, রিংটোন, পিআরবিটি, ফুলট্রাক, ওয়াল পেপার, অ্যানিমেশন, থ্রি-জি কন্টেন্ট ইত্যাদি হিসেবে বাণিজ্যিকভাবে ব্যবহার করে প্রতারণার মাধ্যমে বিপুল পরিমাণ অর্থ উপার্জন করেছে। এ ঘটনা জানার পর বাদি অভিযোগ জানালে আসিফ বিক্ষুব্ধ হয়ে ফেসবুক লাইভে এসে বাদির বিরুদ্ধে অবমাননাকর, অশালীন ও মিথ্যা-বানোয়াট বক্তব্য দেন। ভিডিওতে আসিফ তাকে (শফিক তুহিন) দেখে নেবেন বলে হুমকি-ধামকি দেন। আসিফভক্তরাও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে শফিক তুহিনকে হত্যার হুমকি দেয়।
ঘটনায় পরদিন দায়ের করা মামলায় আসিফকে ২০১৮ সালের ৫ জুন প্রেপ্তার করা হয় এবং ৬ জুন কারাগারে পাঠানো হয়। তিনদিন পর তিনি জামিন পান। তারপরই শুরু হয় প্রতিবেদন দাখিলের জন্য তারিখ নির্ধারণ।