প্রতিবেদন

২০২১ সালে উদ্বোধন: দ্রুত এগিয়ে চলেছে মেট্রোরেলের নির্মাণকাজ

নিজস্ব প্রতিবেদক
সেদিন আর বেশি দূরে নয়, যেদিন মেগাসিটি ঢাকার এক প্রান্ত থেকে আরেক প্রান্তে তীব্র গতিতে ছুটে চলবে দেশের প্রথম মেট্রোরেল। সেই স্বপ্ন পূরণের ল্েয দ্রুত গতিতে চলছে মেট্রোরেল প্রকল্পের কাজ।
এর মধ্য দিয়ে উত্তরা থেকে মতিঝিল পর্যন্ত পৌঁছা যাবে মাত্র ৩৮ মিনিটে। যানজটে অতিষ্ঠ নগরবাসীকে কিছুটা হলেও স্বস্তি দেবে মেট্রোরেলের প্রথম প্রকল্পের বাস্তবায়ন। ইতোমধ্যে মেট্রোরেলের ভায়াডাক্ট বসানো হয়েছে ৯ কিলোমিটার আর রেললাইন বসানোর কাজও এগিয়ে গেছে ৩ কিলোমিটার। স্বাধীনতার ৫০ বছর পূর্তি উদযাপন বর্ষ ২০২১ সালের ১৬ ডিসেম্বর ‘মেট্রোরেল’-এর আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করার পরিকল্পনা নেয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। ১২ ফেব্রুয়ারি জাতীয় সংসদে প্রশ্নোত্তর পর্বে তিনি এ তথ্য জানান।
জানা গেছে, এমআরটি লাইন-৬ নামে পরিচিত এ প্রকল্পের সার্বিক অগ্রগতি ৩১ জানুয়ারি পর্যন্ত ৪০ দশমিক ৩৬ শতাংশ।
২০২৪ সালের মধ্যে এমআরটি লাইন-৬ নির্মাণের ল্য নিয়ে প্রায় ২২ হাজার কোটি টাকার এ প্রকল্পে হাত দেয় সরকার। মোট ৮টি প্যাকেজে কয়েকটি ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানকে দিয়ে ধাপে ধাপে কাজ শুরু করে প্রকল্পের বাস্তবায়নকারী সংস্থা ঢাকা ম্যাস ট্রানজিট কোম্পানি লিমিটেড (ডিএমটিসিএল)।
প্যাকেজ-১-এর আওতায় প্রথম ধাপে ডিপো নির্মাণে ভূমি উন্নয়নের কাজ শুরু হয় ২০১৬ সালের ৮ সেপ্টেম্বর। এটি নির্ধারিত সময়ের ৯ মাস আগেই শেষ হয়ে যায়। এখান থেকে ৭০ কোটি টাকা সাশ্রয়ও হয়।
২০১৭ সালে প্যাকেজ-২-এর আওতায় অবকাঠামো নির্মাণের কাজ শুরু করে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান। আগামী জুনে ডিপো এলাকার সমস্ত পূর্তকাজ শেষ হয়ে যাবে বলে জানা গেছে।
প্যাকেজ-৩ ও ৪-এর আওতায় ২০১৭ সালের ১ আগস্ট উত্তরা নর্থ থেকে আগারগাঁও পর্যন্ত ১১ দশমিক ৭৩ কিলোমিটার ভায়াডাক্ট ও ৯টি স্টেশন নির্মাণের কাজ শুরু হয়।
প্যাকেজ-৫-এর আওতায় আগারগাঁও থেকে কারওয়ান বাজার পর্যন্ত ভায়াডাক্ট ও স্টেশন নির্মাণের কাজ শুরু হয় ২০১৮ সালের ১ আগস্ট। একই সময়ে প্যাকেজ-৬-এর আওতায় কারওয়ান বাজার থেকে মতিঝিল পর্যন্ত ভায়াডাক্ট ও ৪টি স্টেশনের নির্মাণকাজও শুরু হয়।
প্যাকেজ-৭-এর আওতায় মেট্রোরেলের ইলেকট্রিক্যাল ও মেকানিক্যাল সিস্টেম সরবরাহ ও নির্মাণকাজ এবং প্যাকেজ-৮-এ রোলিং স্টক (রেল কোচ) ও ডিপো ইকুইপমেন্ট সংগ্রহের কাজ শুরু হয়েছে ইতোমধ্যে।
জানা যায়, এমআরটি লাইন-৬-এর কাজ দ্রুতগতিতে এগিয়ে চলছে। নির্মাণকাজ শেষ করার নির্ধারিত সময়ের অন্তত আড়াই বছর আগে ২০২১ সালের ডিসেম্বরে এ প্রকল্পের কাজ শেষ হয়ে যাবে। এতে সময় ও অর্থ দুই-ই সাশ্রয় হবে। কাজের গুণগত মান ঠিক রেখে প্রকল্পের কাজ চলছে বলে জানিয়েছে ডিএমটিসিএল।
প্রকল্পসূত্রে জানা যায়, গত ৩১ জানুয়ারি পর্যন্ত এ প্রকল্পের প্রথম পর্যায়ে উত্তরা তৃতীয় পর্ব থেকে আগারগাঁও পর্যন্ত পূর্তকাজের অগ্রগতি হয়েছে ৬৭ দশমিক ৯৭ শতাংশ। দ্বিতীয় পর্যায়ে আগারগাঁও থেকে মতিঝিল পর্যন্ত পূর্তকাজের অগ্রগতি হয়েছে ৩৫ দশমিক ৯৯ শতাংশ। ইলেকট্রিক্যাল ও মেকানিক্যাল সিস্টেম ও রোলিং স্টক (রেলকোচ) ও ডিপো ইকুইপমেন্ট সংগ্রহের কাজের সমন্বিত অগ্রগতি হয়েছে ২৫ দশমিক ২৫ শতাংশ। এর বাইরে এ প্রকল্পের দৈর্ঘ বাড়ছে আরও ১ দশমিক ১৬ কিলোমিটার। এর মধ্য দিয়ে এমআরটি লাইন-৬-কে নিয়ে যাওয়া হবে কমলাপুরে। ওই অংশে এখন সোশ্যাল জরিপ কাজ চলছে।
প্রকল্পের প্যাকেজ-৩ ও ৪-এর আওতায় উত্তরা নর্থ থেকে আগারগাঁও পর্যন্ত পরিষেবা স্থানান্তর, চেকবোরিং, টেস্ট পাইল, মূল পাইল ও আই-গার্ডার নির্মাণের কাজ সম্পন্ন হয়েছে। মোট ৭৬৬টি পাইল ক্যাপের মধ্যে ৭৬১টি, ৩৯৩টি পিয়ার হেডের মধ্যে ৩৮৭টি ও ৫ হাজার ১৪৯টি প্রিকাস্ট সেগম্যান্ট কাস্টিংয়ের মধ্যে ৫ হাজার ১২৩টির নির্মাণ শেষ হয়েছে। আর উত্তরা নর্থ থেকে আগারগাঁও পর্যন্ত ১১ দশমিক ৭৩ কিলোমিটারের মধ্যে ৯ কিলোমিটার ভায়াডাক্ট এখন দৃশ্যমান। বাকি অংশেও ভায়াডাক্ট বসানোর কাজ চলছে। একই সঙ্গে ভায়াডাক্টের দুই পাশে প্রাচীর নির্মাণের কাজও চলছে সমানতালে। এ প্যাকেজে ৯টি স্টেশনের সাব-স্ট্রাকচারের নির্মাণকাজ শেষ হয়েছে। বর্তমানে উত্তরা উত্তর, উত্তরা সেন্টার ও উত্তরা সাউথ স্টেশনের মিলনস্থল (কনকোর্স) নির্মাণের কাজ চলছে। এ প্যাকেজে কাজের সার্বিক অগ্রগতি হচ্ছে ৬৬ শতাংশ।
প্যাকেজ-৫-এর আওতায় আগারগাঁও থেকে কারওয়ান বাজার পর্যন্ত ইতোমধ্যে পরিষেবা স্থানান্তর, চেকবোরিং ও টেস্ট পাইল শতভাগ শেষ হয়েছে। এ অংশে মোট ৬২১টি বোরড পাইলসের মধ্যে ৬০১টি নির্মিত হয়েছে। মোট ২০৩টি পাইল ক্যাপের মধ্যে ৭৫টি পাইল ক্যাপ নির্মাণ শেষ হয়েছে। আর ১০৬টি পিয়ারের মধ্যে ৪৭টি পিয়ার নির্মাণ শেষ হয়েছে। ১ হাজার ৪৮টি সেগমেন্টের মধ্যে ১৬০টি নির্মিত হয়েছে। এ অংশে কাজের অগ্রগতি হচ্ছে ৩৮ দশমিক ২০ শতাংশ।
প্যাকেজ-৬-এর আওতায় কারওয়ান বাজার থেকে মতিঝিল পর্যন্ত ৪ দশমিক ৯২২ কিলোমিটার ভায়াডাক্ট ও ৪টি স্টেশনের নির্মাণকাজ চলছে। যার মধ্যে এখন পর্যন্ত মূল পাইল নির্মাণের জন্য ৪২৩টি ট্রায়াল ট্রেঞ্চের মধ্যে ৪০৭টি সম্পন্ন হয়েছে। মোট ৮৬২টি স্থায়ী বোরড পাইলের মধ্যে ৭৬৬টি, ৯৯৮টি পাইল ক্যাপের মধ্যে ১১১টি ও ১৬০টি পিয়ারের মধ্যে ৮২টি পিয়ারের কলাম নির্মাণের কাজ শেষ হয়েছে। এ ছাড়া ১৩৬টি পিয়ার হেডের মধ্যে ৬০টি পিয়ার হেড ও ১ হাজার ৬২০টি সেগমেন্টের মধ্যে ২০৯টি সেগমেন্ট নির্মাণ শেষ হয়েছে। এ প্যাকেজে কাজের অগ্রগতি হচ্ছে ৪০ দশমিক ২৫ শতাংশ।
এছাড়া, এমআরটি লাইন-৬ প্রকল্পের উত্তরা ডিপো থেকে ১০৪ নম্বর পিয়ার পর্যন্ত প্রায় ৩ কিলোমিটার রেলট্র্যাক বসানোর কাজ ইতোমধ্যে শেষ হয়েছে।