ফিচার

করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে মশলাদার চা, জুস

স্বদেশ খবর ডেস্ক
চীনের বাইরে ১০৩টি দেশে ছড়িয়ে পড়েছে প্রাণঘাতী ‘কোভিড-১৯’ নামের এক মহামারী ভাইরাস। আমাদের শরীরে যাতে এই প্রাণঘাতী ভাইরাসটি প্রবেশ করতে না পারেÑ সেদিকে সতর্ক নজর রাখতে হচ্ছে সব সময়। ঘনঘন হাত ধোয়া, অন্যের হাঁচি-কাশি, কফ থেকে দূরে থাকা, বাইরে বের হওয়ার সময় মাস্ক পরাÑ এসব প্রাথমিক উদ্যোগ যেমন জরুরি, তেমনি শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাও বাড়ানো জরুরি এ সময়। এরই অংশ হিসেবে আপনি কিছু ঘরোয়া উপায় অবলম্বন করতে পারেনÑ তাহলে নিশ্চিতভাবেই পাবেন বাড়তি উপকার।

রোগ প্রতিরোধ বাড়ানোর ঘরোয়া উপায়গুলো কী?
আমলকী খাওয়া: পুষ্টিগুণে ভরপুর আমলকী শরীরের রোগ প্রতিরোধ বাড়াতে অতুলনীয়। ভালো ফল পেতে চা-চামচের অর্ধেক আমলকি গুঁড়ার সাথে একটি রসুনের কোয়া থেতলে সকালে খালি পেটে খেতে পারেন।
নিম পাতা: কঁচি নিম পাতা চিবিয়ে খেলে রক্ত পরিষ্কার হয়। কঁচি নিম পাতায় অ্যান্টি ভাইরাল ও অ্যান্টি ব্যাকটেরিয়াল উপাদান আছে, যা শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়।
মশলাদার চা: কয়েকটি তুলসী পাতা, এক টুকরো আদা ও পরিমাণ মতো গোল মরিচ মিশিয়ে চা পান করলে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ে।
কমলার জুস: নিয়মিত এক গ্লাস কমলার জুসের সাথে সামান্য গোল মরিচের গুঁড়া মিশিয়ে পান করুন। এতে প্রচুর ভিটামিন সি ও অ্যান্টি অক্সিডেন্ট পাবেন, যা রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াবে।
আদা ও তুলসী পাতা: আদা রসের সাথে কয়েকটি তুলসী পাতা বেটে রস পান করুন। এর সাথে এক চা-চামচ মধু মিশিয়ে নিলে উপকার পাবেন। এরকম মিশ্রণ প্রতিদিন পান করলে কফ দূর হবে ও রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়বে।
তুলসী ও গোল মরিচ: প্রতিদিন সকালে খালি পেটে ৫/৭টি তুলসী পাতার সাথে এক চামচ মধু ও দুটো গোল মরিচ গুঁড়া করে মিশিয়ে পান করুন। কিন্তু এরপর পানি পান করা যাবে না।
শক্তিবর্ধক বড়ি: এক চা-চামচ গুঁড়া হলুদ, এক চামচ গুড়, এক চামচ ঘি, এক চামচ শুকনো আদার পাউডার ভালো করে মিশিয়ে ছোট ছোট বল তৈরি করুন। প্রতিদিন ২-৩টা করে খেলে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়বে।
হলুদ মেশানো দুধ: রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে অনেক আগে থেকেই হলুদ মেশানো দুধ পান করার প্রচলন আছে ভারতীয় উপমহাদেশে। করোনা ভাইরাসের মতো প্রাণঘাতী ভাইরাস যখন ছড়িয়ে পড়ছে, তখন এক কাপ গরম দুধের সাথে চা-চামচের অর্ধেক হলুদের গুঁড়া মিশিয়ে নিয়মিত পান করুন। রাতে ঘুমাতে যাওয়ার অন্তত আধা ঘণ্টা আগে পান করলে উপকার পাবেন।